June 21, 2021, 5:03 am

News Headline :
সোনাগাজীতে দ্বিতীয় ধাপে ১৩টি পরিবার পেল ভূমিসহ ঘর দাগনভূঞায় ভূমিহীন-গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রম (২য় পর্যায়) এর শুভ উদ্বোধন ফেনী পৌর আওয়ামী লীগের ৭১ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা দরিদ্র জনগোষ্ঠীর মাঝে ত্রাণ ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ করলেন ফেনী জেলা পরিষদ ফেনীতে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া পাকা ঘর পেলেন আরো ৮৪ পরিবার ছাগলনাইয়ায় মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে ভুমিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে ঘর বিতরণ ফেনীতে বিএনপির বন ও পরিবেশ দিবস উপলক্ষ্যে বৃক্ষরোপন ফেনী হার্ট ফাউন্ডেশন ও ডায়াবেটিস হাসপাতালে হুইলচেয়ার বিতরণ করেছে ফেনী ক্লাব ঢাকা শিক্ষকদের ভ্যাকসিন, শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করে খুলে দেয়া হোক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছাগলনাইয়ায় আইনী সহায়তা ও তৃণমূল পর্যায়ে নারী নেতৃত্ব বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত
ইফতার নিয়ে মহাসড়কে রোজাদারের অপেক্ষায় থাকেন মেয়র স্বপন মিয়াজী

ইফতার নিয়ে মহাসড়কে রোজাদারের অপেক্ষায় থাকেন মেয়র স্বপন মিয়াজী

 

 

 

জাকারিয়া ভুঁইয়া ঃ- প্রতিদিন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ফেনীর মহিপালে ইফতারের থলে নিয়ে রোজাদারদের জন্য অপেক্ষা করেন ফেনী পৌরসভার মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজী।প্রতিদিন তিনি তিন শতাধিক মানুষকে ইফতার করানোর উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। প্রথম রমজান থেকে থেকে শুরু হয়ে ইফতারের এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে শেষ রমজান পর্যন্ত।প্রতিদিন বাদ আসর থেকে ইফতারের পূর্ব মূহুর্ত পর্যন্ত কয়েকজন স্বেচ্ছাসেবক নিয়ে তিনি মহাসড়কে চালক-হেলপার ও যাত্রীদের মাঝে ইফতার বিতরণ করেন।সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বিকেল হতেই মহিপাল ছয় লেন ফ্লাইওভারের পূর্ব অংশের সড়কে ইফতারের থলে নিয়ে রোজাদারদের অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে আছেন মেয়র ও তাঁর স্বেচ্ছাসেবক দল।মেয়র নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজী জানান, রোজাদারদের ইফতার করানো সাওয়াবের কাজ। সেই চিন্তা থেকেই ব্যক্তিগত উদ্যোগে এই ক্ষুদ্র আয়োজন।আমার ব্যক্তিগত কার্যালয়ের পাশেই ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়ক।এ মহাসড়কে প্রতিদিন হাজার হাজার পরিবহন চলাচল করে। আসরের নামাজের পর থেকে ইফতারের আগ পর্যন্ত পরিবহন শ্রমিক ও যাত্রীরা কোথায় কিভাবে ইফতার করবেন তা নিয়ে এক ধরনের অনিশ্চয়তায় থাকতে হয়। অনেক সময় দেখা যায় ইফতারের সময় সড়কের পাশে কোনো দোকানে গাড়ি থামালেও ইফতার পাওয়া যায়না। কখনো পেলেও অতিরিক্ত দামে কেনা অপরিচ্ছন্ন ও নোংরা পরিবেশে ধুলোবালিতে তৈরি এসব ইফতার খেয়ে নানা রকম পেটের সমস্যায় ভোগেন। বিগত দুই বছর রমজানে করোনা পরিস্থিতিতে লকডাউন থাকায় সড়কের পাশে দোকানের সংখ্যা অনেক কমে গেছে। তাই অনেক শ্রমিক ও যাত্রীরা ইফতার করার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হন।তাদের কথা চিন্তা করে বিগত কয়েক বছর ধরে আমার ব্যক্তিগত উদ্যোগে ইফতারের আয়েজন করে আসছি।তিনি আরও জানান, বিগত বছরগুলোতে আমার কার্যালয়ের সামনে বসে ইফতার করতে পারতো রোজাদাররা। গত বছর আর এবছর করোনার কারণে সামাজিক দূরত্ব বিবেচনা করে প্যাকেট করে হাতে হাতে ইফতারি পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে।চলমান করোনা মহামারীর সংকট সম্পর্কে জানতে চাইলে মেয়র স্বপন মিয়াজী বলেন, সমাজের বিত্তবানরা যদি নিজ নিজ অবস্থান থেকে সামর্থ্য অনুযায়ী এগিয়ে আসেন তাহলে করোনা মহামারী কেন, যেকোনো সংকট মোকাবিলা করা সহজ হয়ে যাবে।ইফতার বিতরণের দায়িত্বে থাকা স্বেচ্ছাসেবক মাঈন উদ্দিন সুমন বলেন, মেয়র নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজী ভাইয়ের অর্থায়নে প্রতিদিন রোজাদার গাড়ির চালক ও পথচারীদের মাঝে ইফতারী বিতরণ করা হয়। সড়কে যাতায়াতকারীরা মেয়রের এ ইফতার পেয়ে অনেক উপকৃত হচ্ছেন।

 

Please Share This Post in Your Social Media

Comments are closed.




themesba-zoom1715152249
© All rights reserved © 2020 www.nayapaigam.com
Design & Developed BY Host R Web